বিশ্বসেরা গবেষকদের তালিকায় বশেমুরবিপ্রবির ৩৮ শিক্ষক ও ০৭ শিক্ষার্থী

 প্রকাশ: ০৪ জানুয়ারী ২০২৩, ০৫:৫৫ অপরাহ্ন   |   শিক্ষা

বিশ্বসেরা গবেষকদের তালিকায় বশেমুরবিপ্রবির ৩৮ শিক্ষক ও ০৭ শিক্ষার্থী


মেজবা রহমান (বশেমুরবিপ্রবি)  : :

অ্যালপার ডগার (এডি) সায়েন্টিফিক ইনডেক্সের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত বিশ্বসেরা গবেষকের তালিকা ২০২৩-এ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি  বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) ৩৯ জন শিক্ষক ও ০৭জন শিক্ষার্থী  স্থান পেয়েছেন। সম্প্রতি প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইটে  বিদায়ী বছরের গুগল স্কলারের এইচ-সূচক, আই-১০ ইনডেক্স ও সাইটেশনের তথ্যের ভিত্তিতে এই তালিকা  প্রকাশ করা হয়। তালিকার  সারাবিশ্বের ২১৬ টি দেশের ১৯,৫২৬টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২,৪৭,১৯৪ গবেষকদের  নাম প্রকাশ করা হয়। 


এতে বাংলাদেশের ১৬৮ টি সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট ৬,৩৩৬ জন গবেষক স্থান পায়।

বিশ্বসেরা গবেষকদের তালিকায় নাম থাকা বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষকেরা হলেন, ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. শামসুল আরেফিন, ঈশিতা রায়, সহকারী অধ্যাপক তসলিম আহমেদ, মুনমুন রহমান, মো. রাকিবুল ইসলাম ও মো. উজ্জ্বল হুসাইন, একাউন্টটিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. আব্দুল মান্নান খাঁন ও উজ্জ্বল মন্ডল,ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জেরিন তাসনীম ও প্রভাষক আশিকুজ্জামান, মার্কেটিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ইসরাত জাহান, আয়েশা আক্তার শিউলি ও মো. আল আমিন, কৃষি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. জাহিদুল ইসলাম সোহাগ ও সহকারী অধ্যাপক ড. মো. জিলহাস আহমেদ জুয়েল,ফার্মেসি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মিলন মন্ডল, আর্কিটেকচার বিভাগের প্রভাষক সৌরভ জামান, এনিম্যাল সায়েন্স অ্যান্ড ভেটেনারি মেডিসিন বিভাগের সভাপতি ও সহকারী অধ্যাপক ড. মো. নাজমুল হক ও মো. শরিফুজ্জামান, বায়োকেমিস্ট্রি অ্যান্ড মলিকুলার বায়োলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাহবুব হাসান, বাবরী ফাতেমা ও উম্মে মাহফুজা শাপলা, বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রভাষক নাহমিনা বেগম,ফিশারিজ ও মেরিন বায়োসাইন্স বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শারমিন সুরাইয়া, গণিত বিভাগের সভাপতি ও সহযোগী অধ্যাপক ড. দিপংকর কুমার ও সহকারী অধ্যাপক মো. তরিকুল ইসলাম, এ্যাপ্লাইড কেমিস্ট্রি অ্যান্ড কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. কামরুজ্জামান ও মো. মেহেদি হাসান বাবু, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক নাঈম ইসলাম ও জাহিদ বিন হায়দার, ফুড অ্যান্ড এগ্রো প্রসেসিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রভাষক মো. মোস্তফা কামাল, পরিবেশ বিজ্ঞান ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জাকিয়া সুলতানা,রসায়ন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. মতিয়ার রহমান, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রভাষক শাকিফা আক্তার, পরিসংখ্যান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মো. মতিউর রহমান ও মো. জাহিদ হাসান, ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. আব্দুল্লাহ আল আসাদ ও সহকারী অধ্যাপক নাঈম ফেরদৌস।

এই তালিকায় নাম পাওয়া বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা হলেন,আবু সায়েম মো. সৌকত, মো. নোমান আমিন, আলি হাসান, মো. মেহেদী হাসান কল্লোল, মো. হাসানুর রহমান, চয়ন মন্ডল ও দীপ্ত দে।

এডির এই গবেষক বিচারের শুরু থেকেই পরপর ০৫ বার বিশ্বসেরা গবেষকদের তালিকায় নাম পাওয়া কৃষি বিভাগের শিক্ষক ড. মো. জাহিদুল ইসলাম সোহাগ। তিনি বলেন, বিগত বছরগুলোতে আমি আমেরিকা, চায়না, জার্মানিসহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশে কৃষি বিষয়ে গবেষণা করে আসছি। কিন্তু আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণার পর্যাপ্ত সুবিধা না থাকায় দেশে বসে অনেকাংশে পিছিয়ে পড়তে হয়। এটা আসলেই বাড়ানো উচিত।

ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. শামসুল আরেফিন বলেন, বিশ্বমানের গবেষক হিসেবে আমাদের দেশ থেকে হাজার হাজর শিক্ষকের স্বীকৃতি পাওয়ার বিষয়টি আসলেই গৌরবের। কিন্তু দুঃখের বিষয় হলেও সত্য যে, জাতীয় পর্যায়ে আমাদের কোন সৃকৃতি বা সম্মাননা নাই। 

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. একিউএম মাহবুব বলেন, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা দীর্ঘদিন ধরে বিশ্বমানের গবেষণা করছেন। এটি আমাদের জন্য অত্যন্ত আনন্দের। আমরা আশা করছি, এটি দেখে অন্যান্য শিক্ষক উৎসাহিত হবেন।

শিক্ষা এর আরও খবর: