সুনামগঞ্জে বঙ্গবন্ধুর ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবসে জেলা আ. লীগের আলোচনাসভা ও শিশু সমাবেশ

 প্রকাশ: ১৭ মার্চ ২০২৩, ০৬:০৬ অপরাহ্ন   |   সারাদেশ

সুনামগঞ্জে  বঙ্গবন্ধুর ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবসে জেলা আ. লীগের আলোচনাসভা ও শিশু সমাবেশ


শামসুল কাদির মিছবাহ (সুনামগঞ্জ):

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে আলোচনাসভা ও শিশু সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (১৭ মার্চ) বিকালে সুনামগঞ্জ পৌরসভা চত্বরে জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল হুদা মুকুট।

স্বাগত বক্তব্যে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নোমান বখত পলিন বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণের জন্য বাংলাদেশকে স্বাধীন করতে পাকিস্তানীদের বিরুদ্ধে দেশের আপামর জনসাধারণ ঝাপিয়ে পড়েছিল স্বাধীনতা যুদ্ধে। যাঁর জন্য আমরা আজকে বাচ্চাদেরকে নিয়ে স্কুলে যেতে পারছি, গান গাইতে পারছি, বাংলা ভাষায় কথা বলতে পারছি। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্নজন আন্দোলন, সংগ্রাম করেছেন। কিন্তু আমরা বঙ্গবন্ধুর মাধ্যমেই বাংলাদেশকে দেখেছি। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক আমরা। দেশকে এগিয়ে নিতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা জননেত্রি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নেত্রীর হাত ধরেই আগামী বাংলাদেশ হবে সুন্দর, উন্ন ও সমৃদ্ধশালী।

সভাপতির বক্তব্যে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল হুদা মুকুট  বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা দূরদর্শী চিন্তা থেকেই আমাকে ও নোমান বখত পলিনকে জেলা আওয়ামী লীগের দায়িত্ব দিয়েছেন। যাতে সুনামগঞ্জ আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ হবে। অসাম্প্রদায়িক চেতনায় জাগ্রত হবে। এর প্রমাণ আজকের এই অনুষ্ঠান। বিগত কমিটিকে আমি চ্যালেঞ্জ করে বলতে চাই, এ ধরণের কোনো বড় অনুষ্ঠান সুনামগঞ্জে তারা করতে পারেনি। সামনে আরও বড় বড় রাজনৈতিক কর্মসূচি পালন করা হবে।

নুরুল হুদা মুকুট আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্য আজ আমরা সারা বিশ্বে বীর বাঙালি জাতি হিসেবে পরিচিত। বঙ্গবন্ধুর জন্য আমরা একটি স্বাধীন ভূখণ্ড পেয়েছি। জাতির জনকের সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ট নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল। দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে আওয়ামী লীগ সরকারের বিকল্প নেই। দেশ ও জাতির স্বার্থ রক্ষায় শেখ হাসিনাকে আবারও ক্ষমতায় আনতে হবে।

জেলা যুবলীগ নেতা সবুজ কান্তি দাস ও অ্যাড. বিমান কান্তি রায়ের যৌথ সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর রজত কান্তি সোম মানস। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নোমান বখত পলিন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাড. আলী আমজদ, অ্যাড. নজরুল ইসলাম, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জিতেন্দ্র তালুকদার পিন্টু, সাধারণ সম্পাদক নবনী কান্ত দাশ, অজয় কান্তি তালুদার দুলন, অ্যাড. মণীষ কান্তি দে মিন্টু, অ্যাড. কল্লোল তালুকদার চপল, অমল কর, জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আসাদুজ্জামান সেন্টু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি ঝন্টু তালুকদার, পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শফিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক সাজিদুর রহমান, দপ্তর সম্পাদক লিটন সরকার, যুবলীগ নেতা সাজ্জাদ হোসাইন নাহিদ, নিহার রঞ্জন তালুকদার, শুভ বনিক, মামুনুর রশীদ মামুন, সঞ্জিব তালুকদার, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি খোরশেদুল হাসান খোরশেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আসিফ বখত রাদ, উপ-ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক গৌরব বনিক, পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক দিপ্ত কান্তি দাস, উপ-ধর্মবিষয়ক সম্পাদক দীপ্ত দাস তন্ময় প্রমুখ।

আলোচনাসভা শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে দলীয়, একক সংগীত, নৃত্য পরিবেশন ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা কবিতা আবৃত্তি করেন ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন পৌর আওয়ামী লীগ নেতা সৈকতুল ইসলাম শওকত।অনুষ্ঠানের শুরুতে বঙ্গবন্ধুর ১০৩ তম জন্মবার্ষিকীর কেক কাটেন অতিথিবৃন্দ।

এদিকে সকাল ৮ টায় জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সুনামগঞ্জ ঐতিহ্য যাদুঘর প্রাঙ্গণে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। দুপুর ১ টায়  সুনামগঞ্জ সরকারি শিশু পরিবারে এতিম শিশুদের মধ্যে খাবার বিতরণ করা হয়।

সারাদেশ এর আরও খবর: